Skip to content Skip to sidebar Skip to footer

বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় ২০২২

বর্তমানে যুগে আমরা সকলেই চাই যে একজন সফল ভালো বুদ্ধিমান মানুষ হতে, কিন্তু সঠিক পরামর্শ  না জানার কারণে সেটা আর হয়ে উঠে না। তাই আজকে  আমি আপনাদের জানাবো একজন বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় ও কিছু সফল মানষেদের বুদ্ধিমান হওয়ার টিপস্ গুলো।

বুদ্ধিমান হওয়ার উপায়

আপনি কি জানেন যখন আপনি কাউকে ফোন করেন তো টানা দুইবারের বেশি তাকে ফোন করবেন না? 

এবং আপনি কি এটা জানেন যে, কেউ যদি আপনাকে তার ফোনে কোন ছবিকে আপনায় দেখায় তো আপনার উচিত শুধুমাত্র সেই ছবিটিকেই  দেখার। 

অন্য ছবিগুলিকে দেখা উচিত নয়, এটি একজন বোকা থেকে বুদ্ধিমান মানুষের লক্ষণ । চেষ্টা করবেন সর্বদা এটি করতে। 

তো আজ আমরা এমনই কিছু ডেইলি সুন্দর অ্যাকটিভিটি গুলিকে জানতে যাচ্ছি যা অজান্তেই আমরা করে তো  থাকি ঠিকই কিন্তু সেই অ্যাক্টিভিটি গুলি আমাদের ফিউচারে অনেক বড় খারাপ ইম্প্যাক্ট ফেলে।

এবং লোকেদের নজরে আমরা অনেকটা ছোট হয়ে যাই। 

বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় গুলো কি?

১. ট্রিট গ্রহণ করেন?

যদি কেউ কখনো আপনাকে ট্রিট দিতে চায় তাহলে অর্ডার করার জন্য মেনু কার্ডটি আপনি তাকেই দিন যে ট্রিট  দিচ্ছে আপনাকে। 

এবং তাকেই অর্ডার করতে দিন। 

কারন এমনও তো হতে পারে যে আপনি এমন কিছু অর্ডার দিয়ে দিলেন যার জন্য সে প্রস্তুতই ছিল না।


২. অনেকদিন পর দেখা হলে

অনেকদিন পর যদি কারো সাথে দেখা হয় তো প্রথমে আপনি তার ভালো ও মন্দ জিজ্ঞেস করুন। 

তার পরিবারের লোকেরা কেমন আছে তা জিজ্ঞেস করুন। 

তাকে এলোমেলো বা পার্সোনাল প্রশ্ন করে লজ্জায় ফেলবেন না। 

যেমনঃ মানুষের কাজকর্ম, সেলারি, লাভ লাইফ etc..

এতে আপনার বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায়  শক্তি প্রকাশ পায়।

৩. সুন্দর জায়গায় গিয়ে ছবি তোলা

আপনি কোনো অনুষ্ঠান বা সুন্দর জায়গায় গিয়ে আগেই ছবি তোলা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন না। 

কারণ আপনি যে জন্য সেখানে এসেছেন সেটিকে আগে সামনাসামনি উপভোগ করে নিন। 

আপনি সামনাসামনি সুন্দর জায়গা টিকে উপভোগ করে আপনি যে আনন্দ পাবেন সেই সমান আনন্দ আপনাকে আপনার মোবাইলের ছবিগুলো কখনই দিতে পারবেনা।

৪. ধন্যবাদ প্রকাশ করা 

কেউ যদি আপনাকে সাহায্য করে এবং সে যদি একজন কুলি অথবা রিক্সাওয়ালাও হয়, তবুও তাকে ধন্যবাদ অবশ্যই দেবেন। 

কারণ ধন্যবাদ দিলে আপনি তার কাছে ছোট হয়ে যাবেন না, বরং এতে আপনার বুদ্ধিমান হওয়ার শক্তি উদারতা প্রকাশ পায়। 

আর ধন্যবাদ বলতে তো কোন টাকা লাগে না তাই না? :)

আর আপনরা যদি বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় সম্পর্কে কথা বার্তাগুলো শুনে ভালো লেগে থাকে তাহলে পড়ে যান, আগে আরও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে।

বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায়

 ৫. কারো সাথে কথা বলা অসস্থায়

কেউ যখন কথা বলতে থাকে তো তার কথা বলা অবস্থায় আপনি তার কথা থামিয়ে কথা বলবেন না।

এতে সেই ব্যক্তির চোখে আপনি অনেক টা ছোট হয়ে যাবেন। একজন বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায়ের মধ্যে এটি অন্যতম একটি টিপস্।

কারো সাথে কথা বলার সময় এটি লক্ষ্য রাখবেন।

৬. টাকা ধার নেন?

যদি কারো কাছে থেকে আপনি টাকা ধার নিয়ে থাকেন তবে সেই টাকা টা সময়ের আগে আগেই তাকে পরিশোধ করে দিন।

এতে আপনার সততা এবং স্বচ্ছ  মন প্রকাশ পায়। 

আর যখন আপনি তাকে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই তাকে তার টাকা পরিশোধ করে দেবেন,

তাহলে পরবর্তি সময়ে সেই ব্যক্তি আপনাকে আবার কোন কিছু ধার দিতে একেবারেই আপত্তি বোধ করবে না।

৭. অহংকারী মানুষ

আমার কাছে এই আছে আমার কাছে ওই আছে এগুলি কোনোদিনই কাউকে বলবেন না। 

পারলে নিজের জ্ঞান বুদ্ধি ও প্রতিভাকে নিয়ে Show Up করুন। এটা করলে আপনার বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় ও লক্ষণ বৃদ্ধি পাবে

৮. কথা গোপন রাখা

একজনের গোপন কথা অন্য কারো সাথে বাড়িয়ে বলা উচিত নয়

এতে আপনি সেই ব্যক্তির কাছে অনেকটা নিচু হয়ে যাবেন। 

আর দ্বিতীয়বার সেই ব্যক্তি যার ব্যাপারে এবং যাকে বলেছেন তারা দুজনেই আপনাকে আর কোন গোপন কথা বলবে না ।

একজন বুদ্ধিমান মানুষ হওয়া অতটা সহজ কাজ নয়, প্রতিটি কথার মধ্যে বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় সম্পর্কে খুজতে হবে আপনাকে।

বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায়

৯. অপরিচিত কাউকে তুই বলে ডাকা

অপরিচিত কাউকে তুই তুই বলে ডাকাটা অভদ্রতা,

হোক না সে একজন হকার রিক্সাওয়ালা অথবা ছোট ঘরের মানুষ, অপরিচিত কাউকেই কোনদিনই তুই বলে সম্বোধন করবেন না।

১০. ভদ্রতা বজায় রাখা

যদি আপনি চেয়ারে বসে থাকেন এবং পাশে যদি কেউ আপনার থেকে বয়সে বেশি  দাঁড়িয়ে থাকে তাহলে আপনার চেয়ারটি তাকে দিন বসার জন্য।

একই সেইম জিনিসটি আপনি বাস বা মেট্রতেও করতে পারেন। যদি আপনার গন্তব্য স্থল কাছে হয় তবে। 

সর্বদা চেষ্টা করবেন এইসব ছোট ছোট উপায় গুলো ব্যবহার করে একজন বুদ্ধিমান মানুষ হয়ে উঠতে।

১১. আপনি কি রেস্টুরেন্টে যান?

কোন রেস্টুরেন্টে খাওয়ার পর ওয়েটারকে বকশিশ দেওয়ার সময় এই কথাটি মাথায় রাখবেন যে, 

যেন তার অপমান না হয়। সেরকম হলে আপনি বকসিস দেবেন না তাও ভাল।

কিন্তু যদি দেন তাহলে অবশ্যই সম্মানজনকভাবে দেবেন, নিজের বুদ্ধি খাটিয়ে দিবেন।

১২. অপমানজনক ভঙ্গি করা

কখনো কোথাও বসলে নিজের পা এমন ভাবে রাখুন যেন পা অন্য কারোর দিকে পয়েন্ট না করে। 


যদি কারো দিকে আপনার পা পয়েন্ট করে, তাহলে সেটি সামনের ব্যক্তির জন্য অপমানজনক হয়। 

এই বিষয়টিকে আপনি Office, School, Interview, গুরুজনদের সামনে অবশ্যই মনে রাখবেন।

১৩. নিজের পোষা প্রাণী

যদি আপনার কোনো Dog বা Pet থেকে থাকে যাকে কিনা আপনি খুবই ভালোবাসেন, 

তো তার মানে এই নয় যে সবাই তাকে আপনার মতই Dog বা Pet কে ভালোবাসবে। 

নিজের পোষা প্রাণী কে সবসময় নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

১৪. হাটার ভদ্রতা

হাঁটার সময় আপনি এটা খেয়াল রাখবেন যেন আপনার জুতোর শব্দ না হয়। 

আর হাঁটার সময় পা ঘেসেও হাঁটবেন না। এটি আপনার Self-Esteem কে ড্রেসক্রাইব করে।

সবসময় নিজেকে অন্য জনের দিত থেকে দেখবেন, তাতে আপনার বুদ্ধিমান মানুষ হওয়ার ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

শেষ কথা:
তো এই ছিলো বোকা থেকে বুদ্ধিমান হওয়ার উপায় সম্পর্কে, যা আপনার জন্য একটু হলেও উপকার হবে বলে আমি মনে করি। প্রতিদিন এইসব বিষয় গুলো মাথায় রেখে সময় পার করবেন আর ঠিকসময় বুদ্ধিমান মানষের লক্ষণগুলো নিয়মিত ব্যবহার করবেন, যাতে এইসব প্রতিদিনের অভ্যসে পরিনিত হয়। আর কিছু দিনের মধ্যে আপনি একজন বুদ্ধিমান মানুষ হয়ে উঠবেন ইনশাল্লাহ্

Grammarly Premium Account 149 bytes