Skip to content Skip to sidebar Skip to footer

মুখের গন্ধ দূর করার উপায় কি? ২০২২

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়

মুখের গন্ধ দূর করার ২০২২

  • মুখের গন্ধ দূর করার উপায় ২০২২

মুখের গন্ধের সমস্যায় অনেকেই ভুগে। কি কি কারণে মুখে বাজে গন্ধ হয়। আর কি করলে মুখের গন্ধ দূর হবে তা সহজ করে পুরো ব্যপারটা বুঝিয়ে বলব। আশা করি পুরো পোস্টটা ভালো করে পড়লে আর কোনো পোস্ট পড়ার প্রয়োজন পরবে না। মুখের দুর্গন্ধের সমস্যা সম্পর্কে যা যা প্রশ্ন ছিল সব বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে এই পোস্টে।

মুখের গন্ধ দূর করার উপায় ১

  • মুখ শুকিয়ে যাওয়া

আমাদের মুখের ভেতরটা সাধারণত ভেজা থাকে। কারণ সারাক্ষণই মুখের ভেতরে লালা আসতে থাকে। এই লালা আমাদের বেশ কয়েকটি উপকার করে। 

  1. মুখ পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। 
  2. ছোট ছোট খাদ্যকণা মুখ থেকে সরায়। 
  3. যেসব জিনিসের কারণে মুখে বাজে গন্ধ তৈরি হয় সেগুলো সরায়।


কিন্তু যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে লালা মুখে না থাকে, তখন মুখ শুকিয়ে যায় ফলে মুখে বাজে দেখা দেয়।

যেমন সকালবেলা ঘুম থেকে উঠলে আমাদের মুখে একটু বাজে দুর্গন্ধের মত হয়। 

সেটা মুখ শুকিয়ে যাওয়ার জন্য হয় কারণ ঘুমের সময় মুখে খুব কম পরিমাণে লালা আসে।

মুখের গন্ধ দূর করতে কি করতে হবে?

১। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খাবেন। শরীরে যদি পানিশূন্যতা হয় তখন মুখের লালার পরিমাণও কমে যায়।

২। অনেক বেশি চা, কফি, সফ্ট ড্রিংক, খাবেন না, এগুলোতে মুখ শুকিয়ে যেতে পারে। 

৩। এমন খাবার খাবেন যেগুলো বেশি বেশি চাবাতে হয়। যেমন, শসা, গাজর, আপেল, চাবানোর ফলে মুখে লালা আসবে।

৪। চুইংগাম চাবাতে পারেন সেটাও মুখে লালা আনতে সাহায্য করে। 

চিনি ছাড়া যেসব চুইংগাম পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। চিনি ছাড়া কেন তা একটু পরে বুঝিয়ে বলছি।

মুখের গন্ধ দূর করার উপায় ২

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়


  • (অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস)

আমরা যা খাচ্ছি তা অনেকভাবে আমাদের মুখে বাজে গন্ধ সৃষ্টিতে সাহায্য করতে পারে। আমি দুইটা বিষয় তুলে ধরব।

১.

চিনিযুক্ত খাবার আর পানীয় যতটুকু সম্ভব এড়িয়ে চলবেন। 

কেন তা বুঝিয়ে বলি। চিনি আছে এমন কিছু আপনি যখন খান দাঁতের উপরে চিনিযুক্ত খাবারের কণা লেগে থাকে। 

সেই চিনি হজম করার কাজে লেগে পরে আমাদের মুখের ভিতরে থাকা অসংখ্য ব্যাকটেরিয়া। 

এইসময় কিছু এসিড উৎপাদন হয় যা গিয়ে সরাসরি দাঁতকে আক্রমন করে। 

বারবার এমন হতে থাকলে দাঁতের বাইরের আবরণ খয় হয়ে যায়। ফলে দাঁতে ছোট ছোট গর্ত দেখা দেয়।

 এখন এই ছোট গর্তে বাজে গন্ধ তৈরি করে এমন জীবাণুগুলো লুকিয়ে থাকার জায়গা পেয়ে যায়।

 তারপর সেই চিপা থেকে দাঁত ব্রাশ করে ঐগুলোকে বের করা দুরূহ হয়ে পড়ে। ফলে মুখে বাজে গন্ধ হয়। 

২.

শরীরের পুষ্টির ঘাটতি দেখা দিলে মুখে বাজে গন্ধ হতে পারে। সুষম খাদ্যাভ্যাস আপনার শরীর সুস্থ রাখবে, এবং মুখের গন্ধ দূরে রাখবে। 

আপনি কী খাচ্ছেন সেটা একটু খেয়াল করবেন। বেশি বেশি রকমের শাকসবজি ও ফলমূল খাবেন এগুলোতে অনেক বেশি পরিমাণের ভিটামিন মিনারেল থাকে। 

বিভিন্ন ধরনের বিভিন্ন রঙের সবজি আর ফল খাওয়ার চেষ্টা করবেন। যেই সৃজনে যা সুলভ মূল্যে পাওয়া যায় সেগুলোই বেশি বেশি খাওয়ার চেষ্টা করবেন।


মুখের গন্ধ দূর করার উপায় ৩

  • মুখের ভেতরটা ঠিকমতো পরিষ্কার না রাখা।

ভালোভাবে পরিষ্কার না করলে মুখের বিভিন্ন জায়গায় ছোট ছোট খাদ্যকণা আটকে থাকে। 

যেমন জিব্বার ওপরে, দুই দাতের মাঝখানে, মারিয়ার দাতের মাঝখানে, আমাদের মুখের ভেতরে যে জীবাণুগুলো থাকে সেগুলো তখন কোনায় কোনায় আটকে থাকা খাদ্যকণা ভাঙতে শুরু করে। 

সেখান থেকে ক্যামিকেল নিঃসরণ হয় যা থেকে মুখের গন্ধ তৈরি হয়। এটা ঠেকাতে মুখের ভেতর টা খুব যত্ন নিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।

মুখ পরিষ্কার রাখার ৪টি উপায় বলছি

  • প্রতিদিন দুইবার দাঁত মাজা

প্রতিবার অন্তত দুই মিনিট ধরে দাঁত মাজবেন। 

মুখের গন্ধ দূর করার জন্য ফ্লোরাইড সমৃদ্ধ টুথপেস্ট ব্যবহার করবেন। 

কারণ ফ্লোরাইড দাঁতের ক্ষয় ঠেকাতে সাহায্য করে। বেশিরভাগ টুথপেস্ট এই এখন ফ্লোরাইড থাকে ।

 আর দাঁত মাজার সময় দাঁতের ভেতর পাশ বাইরের পাশ এবং যে পাশ দিয়ে খাবার চাপাচ্ছেন সবদিক পরিষ্কার করবেন।

  • দুই দাতের মাঝখানে পরিষ্কার করা

দুই দাঁতের মাঝখানে মাংস আটকে গেলে সেটা টুথপিক দিয়ে খুঁচিয়ে বের করার চেষ্টা করি। 

তাছাড়া ওই জায়গায় আমরা খুব একটা মনোযোগ সাধারণত দেইনা। প্রতিদিন দাঁত মাজলেও ওই জায়গাটা পরিষ্কার হয় না। 

কারণ টুথব্রাশ দুই দাঁতের মাঝখানে জায়গায় পৌঁছাতে পারে না ফলে এখানে খুব ছোট ছোট খাবারের টুকরা আর জীবাণুর একটা আস্তরণ জমে যায়। সেখান থেকে মুখে গন্ধ হতে পারে। 

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়

এই জায়গাটা পরিষ্কার করতে ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করতে পারেন। 

৫০ থেকে ১০০ টাকায় কিনতে পাওয়া যায়। চিকন সুতা বা তারের মতো একটা জিনিস এইটা দিয়ে আলতো করে দুই দাঁতের মাঝখানের জায়গা পরিস্কার করবেন। 

বেশি জোরে ঘষবেন না তাতে মাড়ির ক্ষতি হতে পারে। আর যখন ফ্লস করা শুরু করবেন তখন প্রথম কিছুদিন মারি থেকে একটু রক্ত যেতে পারে কিছুদিন পরেই সেরে যায়। 

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়

ডেন্টাল ফ্লস ছাড়াও ইন্টার ডেন্টাল ব্রাশ দিয়েও দাঁত এর মাজখানটায় পরিষ্কার করা যায়। 

সুযোগ থাকলে সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। তবে টুথপিক দিয়ে এই কাজটা করতে যাবেন না।

 কারণ টুথপিক দুই দাতের মাঝখানে ভালোভাবে পৌঁছাতে পারে না। 

আবার এতে মারি ক্ষতি হওয়ার একটা সম্ভাবনা আছে যেখান থেকে ইনফেকশন হতে পারে। 

এই যে দুইটা কাজের কথা বললাম প্রতিদিন দুইবার দাঁত মাজা আর একবার দাঁতের মাঝখান টা পরিষ্কার করা। 

এগুলো করলেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মুখে গন্ধ হওয়ার কথা না

 কিন্তু তারপরেও মুখে বাজে গন্ধ থাকলে মুখ পরিষ্কার রাখতে বাড়তি আরো দুইটা কাজ করতে পারেন।

  • জিব্বা পরিষ্কার করা

আমাদের জিব্বার বিশেষ করে পেছনের দিকে ব্যাকটেরিয়া জমে গিয়ে মুখে বাজে গন্ধ তৈরি হতে পারে। 

দিনে একবার আলতো করে জিব্বা পরিষ্কার করবেন। 

দোকানে দেখবেন টাং ক্লিনার ব্রাশ  নামে একটা জিনিস কিনতে পাওয়া যায় ৭০ থেকে ৮০ টাকা দিয়ে কিনতে পাবেন সেটা দিয়ে জিব্বার পেছন থেকে সামনের দিকে পরিষ্কার করবেন।

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়
মুখের গন্ধ দূর করার উপায়

মুখের গন্ধ দূর করার উপায় ২০২২

  • মুখের গন্ধের জন্য মাউথওয়াশ ব্যবহার করা

মাউথওয়াশ ব্যবহার করে দেখতে পারেন, এটাও আপনার মুখ পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। 

আমি এখানে একদম সাধারন চারটি উপায় কথা বলেছি। 

একজন ডেন্টিস্ট আপনার সমস্যা অনুযায়ী আরো বিস্তারিত সমাধান দিতে পারবেন। 

এখানে আরেকটা কথা বলে রাখি অনেক সময় মুখের গন্ধের জন্য আমরা কেবল মাউথওয়াশ, চুইং গাম, লজেন্স, এগুলোর কথাই চিন্তা করি। 

কিছু একটা মুখে পুড়ে দিলাম আর গন্ধটা হয়তো চলে যাবে। 

অনেক ক্ষেত্রেই এগুলোর সামরিক একটা সমাধান দিতে পারে। কিন্তু মুখে বাজে গন্ধ হওয়ার কারণটা খুঁজে বের করে সেটার সমাধান না করলে গন্ধ আবার ফিরে আসতে পারে।

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়: ৪

মুখের গন্ধ দূর করার উপায়

                                                                 ধূমপান, জর্দা ও গুল

ধূমপান শরীরে অনেক ধরনের ক্ষতি করার পাশাপাশি এটা কয়েকভাবে মুখে বাজে গন্ধ তৈরি করতে পারে। 

তামাক থেকে একটা বাজে গন্ধ আসে, তামাক মুখটা শুকনো করে ফেলে আবার ধূমপায়ীদের মাড়িতে রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে, সেখান থেকেও মুখে বাজে গন্ধ হতে পারে। 

আপনি যদি ধূমপান করেন আজকে থেকেই ছেড়ে দেয়ার চেষ্টা করেন। 

মুখের  দুর্গন্ধ সেরে যাওয়া সহ আপনার স্বাস্থ্যের অনেক উপকার হবে। 

আর তামাক যে শুধু  সিগারেটে থাকে তা কিন্তু নয়। 

বিভিন্ন প্রকারের জরদা যেমন, শুকনা জর্দা, জাফরানি জর্দা, ভিজাপাতি জর্দা, গুল, সাদাপাতা, এমনকি অনেক পান মশলা তেও তামাক থাকে। এগুলো খেলে সেখান থেকেও মুখে বাজে গন্ধ হতে পারে।

পাশাপাশি এগুলো মুখের ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। তাই যাদের এসব খাওয়ার অভ্যাস আছে তারা দয়া করে ছেড়ে দেয়ার চেষ্টা করুন। 

আর যাদের অভ্যাস নাই তারা এটা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করুন।


মুখের গন্ধ দূর করার সহজ উপায় ৫

  • মুখের গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম

মুখে ভেতরে যদি কোনো রোগ থাকে যেমন, দাঁতে খয়, হয়েছে মাড়ির রোগ, সে কারণেও মুখে গন্ধ হতে পারে। 

একটু আগে বললাম কেমন করে দাঁতের ক্ষয় হলে সেই গর্তে বাজে গন্ধ সৃষ্টিকারী জীবাণু লুকিয়ে থাকতে পারে। মাড়ির রোগের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটতে পারে। 

মাড়ির কিছু রোগের বাজে গন্ধ সৃষ্টিকারী জীবাণু গুলো লুকানোর ভালো জায়গা পেয়ে যায়। 

আর মাড়ির রোগ সাধারণত ব্যথা হয়না তাই আমরা বুঝতে পারিনা যে মাড়িতে সমস্যা হচ্ছে। 

কিন্তু এই মাড়ির রোগের কারণে এক পর্যায়ে গিয়ে আমাদের দাঁত গুলো পড়ে যায়। 

তাই সমস্যার শুরুতেই একজন ডেন্টিস্ট দেখিয়ে নিলে সেটা হয়তো রোধ করা যেত। 

তাই নিজে নিজে চেষ্টা করার পরও যদি মুখে বাজে গন্ধ থাকে, তাহলে একজন ডেন্টিস্টের কাছে যাবেন।

তিনি দেখিয়ে দিতে পারবেন আপনার দাঁতের মাড়ির কোন রোগের কারণে মুখে বাজে গন্ধ হচ্ছে কিনা এবং সেই অনুযায়ী চিকিৎসা দিতে পারবেন। 

মুখের গন্ধ ছাড়াও মাড়ির রোগ এর আরো কিছু লক্ষণ আছে। 

যেগুলো দেখা দিলে আপনার ডেন্টিস্টের কাছে যাওয়া প্রয়োজন। সেগুলো বলে দিচ্ছি। মাড়ি থেকে যদি রক্ত যায়। 

অনেকেরই দাঁত ব্রাশ করার সময় মাড়ি থেকে রক্ত যায় এবং আমরা সেটাকে তেমন পাত্তা দেই না। কিন্তু এটা মাড়িতে রোগের কারণে হতে পারে যার ফলে অকালে দাঁত পড়ে যেতে পারে। 

যেমন মাড়ি যদি ফোলা হয়, মাড়িতে যদি ব্যথা হয়, দাঁত থেকে মাড়ি যদি সরে আসে, দাঁত যদি আলগা হয়ে আসে, দাঁতে যদি ব্যথা হয়।

Grammarly Premium Account 128 bytes

মুখের গন্ধ দূর করার উপায় ৬

দাঁত বা মাড়ি  ছাড়া শরীরের অন্যান্য অঙ্গের রোগ। 

যেমনঃ নাকের ইনফেকশন, টনসিলের রোগ, শ্বাসতন্ত্রের রোগ, পাকস্থলীর সমস্যা ইত্যাদি, থেকে মুখে বাজে গন্ধ হতে পারে। 

কিছু ওষুধের কারণে মুখ শুকিয়ে যেতে পারে। যেখান থেকে মুখে বাজে গন্ধ হতে পারে। 

এসব ক্ষেত্রে একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। তিনি কারণটা খুঁজে বের করে সেই অনুযায়ী আপনাকে  চিকিৎসা দিতে পারবেন। 

এর পরের পোস্টে বলব মুখের গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম ও মুখের  গন্ধ দূর করার হোমিও ঔষধ

মুখের গন্ধ দূর করার উপায় সম্পর্কে মোটামুটি সব বিষয় তুলে ধরা হয়েছে। 

আশা করি আপনার একটু হলেও উপকার হবে।

ধন্যবাদ।